Home » জাতীয় » আপনজনদের খোঁজে নেপালের হাসপাতালে স্বজনদের যাত্রা
আপনজনদের খোঁজে নেপালের হাসপাতালে স্বজনদের যাত্রা
আপনজনদের খোঁজে নেপালের হাসপাতালে স্বজনদের যাত্রা

আপনজনদের খোঁজে নেপালের হাসপাতালে স্বজনদের যাত্রা

আজ সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থাতে মৃত্যুবরণ করেছেন পাইলট আবিদ সুলতান। এ নিয়ে কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজ বিধ্বস্তের ঘটনাতে নিহতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫০ জনে। মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনায় কেউ হারিয়েছেন ভাই, কেউ বোন আবার কেউবা তাদের প্রিয় সন্তানকে। উড়োজাহাজটিতে থাকা যাত্রীদের স্বজনরা গতকাল ভিড় করেছেন বারিধারার ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের অফিসে। তাদের কান্নায় ভারি ছিল বারিধারার আকাশ-বাতাস। আপনজনদের সর্বশেষ অবস্থা জানার জন্য আজ মঙ্গলবার সকালে তারা ছুটে গিয়েছেন নেপালে।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নেপালে পৌঁছান তারা। বিধ্বস্ত উড়োজাহাজে থাকা যাত্রীদের ৪৬ স্বজন নেপালে পৌঁছেছেন। কাঠামান্ডুতে পৌঁছানোর পর তাদের প্রথমে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বাংলাদেশ দূতাবাসে। সেখান থেকে দূতাবাসের নিজস্ব গাড়িতে তাদের নিয়ে যাওয়া হয়েছিলো হাসপাতালে আপনজনদের পাশে।

কাঠমান্ডুর বাংলাদেশ দূতাবাস জানান, আহতদেরকে সেখানকার তিনটি হাসপাতালে রাখা হয়েছে। সেখানে তাদের চিকিৎসা চলছে খুব ভালোভাবেই। মৃতদেহগুলো স্বজনরা চিহ্নিত করার পর দেশে পাঠানোর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এর আগে, ,মঙ্গলবার সকাল ৯টা ২ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ফ্লাইটটি ছেড়ে গিয়েছে। ইউএস বাংলার এয়ারলাইন্সের ৭ জন প্রতিনিধিও সেই ফ্লাইটে ছিলেন।

গতকাল সোমবার হতাহতদের প্রতিটি পরিবার থেকে একজনকে নেপালে নিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছিল ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সের কর্তৃপক্ষ।

উল্লেখ্য, সোমবার দুপুরে ঢাকা থেকে যাত্রা করা ইউএস-বাংলার ড্যাশ ৮-কিউ ৪০০ এয়ারক্রাফটটি ত্রিভুবন বিমানবন্দরে নামার সময় পাইলট নিয়ন্ত্রণ হারালে তা রানওয়ে থেকে ছিটকে পড়ে বিধ্বস্ত হয়। দুর্ঘটনাস্থলেই ৪০ জন নিহত হন। পৃথক দুই হাসপতালে ১০ জন মারা যান।

বিধ্বস্ত হওয়া উড়োজাহাজটির যাত্রীদের মধ্যে বাংলাদেশের ৩২ জন, নেপালের ৩৩ জন, চীনের একজন ও মালদ্বীপের একজন যাত্রী ছিলেন বলে এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে জানা গিয়েছে।

আরো পড়ুন-

বিধ্বস্ত বিমানের যাত্রীগুলো পুড়ছিল আর কষ্টে চিৎকার করছিল!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: