Home » স্বাস্থ্য » আপানার সঙ্গিনীকে কামোত্তেজনায় পাগল করতে শুধুমাত্র এই ৯টি জায়াগায় স্পর্শ করুন…
আপানার সঙ্গিনীকে কামোত্তেজনায় পাগল করতে শুধুমাত্র এই ৯টি জায়াগায় স্পর্শ করুন…
আপানার সঙ্গিনীকে কামোত্তেজনায় পাগল করতে শুধুমাত্র এই ৯টি জায়াগায় স্পর্শ করুন…

আপানার সঙ্গিনীকে কামোত্তেজনায় পাগল করতে শুধুমাত্র এই ৯টি জায়াগায় স্পর্শ করুন…

মেয়েদের শরীরের কোন কোন স্থানে স্পর্শ করলে তাঁর কামোত্তেজনা বৃদ্ধি করা যায়? জেনে নিন বিশেষজ্ঞদের অসাধারন পরামর্শ যা আপনার যৌনতাকে আরও অধিক ঘটনাবহুল করতে সক্ষম হবে।

১) নারীর চুল শুধু তাঁর সৌন্দর্য্য বাড়াতেই সাহায্য করে না, নারীদের চুল স্পর্শ করলে তারা কামোত্তেজনার সাগরে তলিয়ে যান। বিউটি পার্লার গুলোতে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কেশচর্চায় শুধু রূপ বাড়ানোর জন্যই হয় না, তা স্ট্রেস রিলিভার হিসেবেও অনেক কাজে দেয়। কপাল থেকে ঘাড় পর্যন্ত ম্যাসাজ করতে পারলে আপনার প্রিয় নারী কামোত্তেজনায় উন্মাদ হবেই।

২) কোমর এবং তার নীচের অংশ স্পর্শ করলে নারী-শরীরে সুখের অনুভূতী বয়ে যায়। আপনাকে খুব বেশি সাহসী হওয়ার দরকার নেই, তবে থাইয়ের ভিতরের অংশ এবং কোমরের ভাঁজের মধ্যে জিভ বুলিয়ে দিলে সুখের আতিশয্যে নারী পাগলের মত হয়ে যায়। তবে ভুল করেও এই সময়টাতে তাঁর যৌনাঙ্গ স্পর্শ করবেন না। তার জন্য আরও অধিক সময় চাই।

৩) ফিট ম্যাসাজের কথা হয়ত এতকাল গল্পেই দেখেছেন। সঙ্গিনীকে পরিপূর্ণ সুখ দিতে চাইলে পায়ের গোছ, গোড়ালি, পায়ের পাতা ও আঙুল ভালো করে ম্যাসাজ করে দিন। মাঝে মাঝে এই সমস্ত অঙ্গগুলোতে জিভের ডগা দিয়ে সুড়সুড়ি দিন। সাথে সাথেই তার ফল দেখতে পাবেন।

৪) কখনও কি প্রেমিকার কানের লতি স্পর্শ করেছেন? যদি না করে থাকেন, তাহলে এই লেখাটা মন দিয়ে দেখুন। প্রথমে হাল্কা চালে আঙুল দিয়ে ছুঁয়ে যান কানের বাইরের অংশ। তারপর জিভ কাজে লাগিয়ে কানের প্রবেশদ্বার ও লতিতে স্পর্শ করুন। দেখবেন সুখস্পর্শে শিউরে উঠছেন প্রেয়সী। সুখের মাত্রা বাড়াতে অল্প কামড়ও বসাতে পারেন কানের লতিতে।

৫) নির্জনে প্রেমিকার হাত ধরে তো অনেক বসলেন। জানেন কি, তাঁর হাতের তালুতে সুড়সুড়ি দিলে কী ফল হতে পারে? নারীর যৌন চেতনা বাড়িয়ে দিতে এই পেলব ছোঁয়ার বিকল্প নেই, মনে রাখবেন।

৬) প্রেমিকার হাঁটুর পিছনের অংশে হাত বোলানোর মতো উদ্ভট চিন্তা বেশির ভাগ পুরুষের মাথাতেই আসে না। একবার চেষ্টা করেই দেখুন না! ওই স্থানে যুগপত্‍ তর্জনী ও ঠোঁট বুলিয়ে দিতে থাকলে কয়েক মিনিটেই দেখবেন আপনার থেকে আরও কিছু আশা করছেন স্বপ্নের নারী।

৭) পিঠের ওপর আলতো হাত রাখলে একই সঙ্গে নারী হৃদয়ে ভরসা ও অনুরাগের ভাব বিস্তার হয়ে থাকে। ঘনিষ্ঠ অবস্থায় তাঁর মেরুদণ্ড বরাবর জিভ বুলিয়ে যান, দেখবেন সঙ্গিনীর গায়ে কামোত্তেজনায় কাঁটা দিয়ে উঠেছে।

৮) স্বল্প উঁচু কণ্ঠার হাড় বহু নারীর সৌন্দর্যে নয়া মাত্রা যোগ করে। সুযোগ পেলে সেখানে একটু চুমু খান। গলা ও বুকের ওপরের অংশে হাল্কা ছোঁয়ায় নারী হৃদয় বিগলিত হয়, জেগে ওঠে শরীর।

৯) ঘাড়ের তলদেশে সুখস্পর্শ পেতে বিশ্বের বেশির ভাগ মহিলাই চান। একদা জাপানে নারীদেহের ওই অংশটি দর্শনে পুরুষের যৌন উত্তেজনা বাড়াতে সাহায্য করত। যৌন অভিযানে দুঃসাহসী হয়ে সঙ্গীনির শরীরের এই অংশে মনোনিবেশ করুন। জিভের ডগা ঠিকঠাক কাজে লাগালে ভালো পুরস্কার পাবেন, গ্যারান্টি।

আরো পড়ুন-

দাম্পত্যে জীবনে সুখ পেতে সকাল বেলায় যে ৫টি কাজ করা জরুরী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: