Home » খেলাধুলা » ক্রিকেট » কোহলি, শচীন, স্মিথ এবং ব্যাডম্যানদের হার মানালেন আফগানিস্তানের যে যুবক
কোহলি,শচীন,স্মিথ এবং ব্যাডম্যানদের হার মানালেন আফগানিস্তানের যে যুবক
কোহলি,শচীন,স্মিথ এবং ব্যাডম্যানদের হার মানালেন আফগানিস্তানের যে যুবক

কোহলি, শচীন, স্মিথ এবং ব্যাডম্যানদের হার মানালেন আফগানিস্তানের যে যুবক

স্যার ডন ব্র্যাডম্যানের ষাট দশকের  সময় ক্রিকেটের যে উষ্ণতার রেকর্ড ছিল তা ভেঙে গেছে  অস্টোলিয়ার সিডনিতে।  তাসমান প্রতিবেশীরা আর তিনদিন পরেই আরও উত্তপ্ত হয়ে উঠবে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে যেটা শুরু হচ্ছে নিউজিল্যান্ডে। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের  সবচেয়ে বড় তারকাকে সবাই চেনেন তো , না চিনলে বড় ভূল  করছেন।  কারণ ১৭ বছরের এই ক্রিকেটারই স্যার ডন ব্র্যাডম্যানের রেকর্ড ভেঙে ফেলেছে।

এরই মধ্যে নিউজিল্যান্ড মাতাতে শুরু করেছে ব্র্যাডম্যানের রেকর্ড  ভাঙা ১৭ বছরের এই ক্রিকেটার যার নাম বাহির শাহ। আফগানিস্তানের এই ক্রিকেটার  প্রস্তুতি ম্যাচে সেঞ্চুরি এবং ফিফটি করেছেন। তবে এসবতো(৫০ ওভার) ক্রিকেটের কথাবার্তা।

বাহির শাহ তো এমন কীর্তি গড়েছেন প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে। যা কদিন আগেও প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে  সর্বোচ্চ গড়ের রেকর্ডটি ছিল ব্র্যাডম্যানের।একটানা দুই দশকের বেশি সময়ে ধরে ২৩৪ ম্যাচ খেলেও গড়টা ৯৫.১৪-এর নিচে নামতে দেয়নি এই ক্রিকেট-বিস্ময়। কিন্তু বাহিরকে নিয়ে এতো আলোচনা হচ্ছে কেন? কেনোই বা তাকে  বিস্ময়-বালক বলা হচ্ছে।কারণতো অবশ্যই আছে। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে যার  গড় এখন ১২১.৭৭। কমপক্ষে এক হাজার রান  করা ব্যাটসম্যানদের মধ্যে বাহিরের গড়ই এখন সর্বোচ্চ।

আফগানিস্তানের এই ক্রিকেটার ক্যারিয়ারের  শুরু থেকেই অবশ্য রেকর্ড ভাঙতে শুরু করে দিয়েছে। বাহির গত অক্টোবরে প্রথম শ্রেণির  ক্রিকেটে অভিষেকেই ২৫৬ রানে অপরাজিত ছিল। এর দুই ম্যাচ পরেই পেয়েছে ক্যারিয়ারের প্রথম ট্রিপল সেঞ্চুরি। যা জাভেদ মিয়াঁদাদের পর দ্বিতীয় কনিষ্ঠতম ট্রিপল সেঞ্চুরিয়ান। এই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান ৩৬ চার ও ১ ছক্কায় ৩০৩ রান করে অপরাজিত ছিল।

এই ট্রিপল সেঞ্চুরির মাধ্যমে  চার ম্যাচে  বাহির শাহর রান হয়ে গিয়েছিল ৮৩১।  এতেই সে টপকে গিয়েছিল অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি  বিল পন্সফোর্ডকে। ১৯২০-২১ মৌসুমে প্রথম শ্রেণিতে অভিষিক্ত অস্ট্রেলিয়ান  এই ক্রিকেটার চার ম্যাচেই ৭৪১ রান করেছিলেন।

কিন্তু পঞ্চম টেস্টে বৃষ্টি বাগড়া না দিলে পন্সফোর্ডের আরেক রেকর্ডেও ভাগ বসাতে পারত বাহির শাহ।বৃষ্টি কারনে খেলা না হওয়ায় ৯ রানে অপরাজিত থাকা বাহির দ্রুততম হাজার রানের রেকর্ডে পন্সফোর্ডের পেছনে পড়ে রয়েছে।

সপ্তম ম্যাচে এসে হাজার রান করেন বাহির।আর ৭ ম্যাচে ১০৯৬ রান করেই পেছনে ফেলেছে ডন ব্র্যাডম্যানকে। ১৮ বছর পূর্ণ হওয়ার আগেই এমন কীর্তিতে ভাগ বসালেন বাহির। যেখানে এমন কির্তী করে দেখাতে পারেনি বর্তমান সময়ের রানের ঘোরা ছোটানো স্মিথ, বিরাট কোহলি এবং সিাবেক লিটল মাস্টার সচীন টেন্ডোলকারও। তবে   এমন অর্জনের কোনো ছিটেফোঁটাও টের পাওয়া যায় না বাহিরের কথায়। সে বলে যে  ‘আমাদের ঘরোয়া দলে জায়গা পাওয়াই কঠিন। আমার পরিবার, বন্ধু ও কোচকে ধন্যবাদ  জানাই আমাকে সমর্থন দেওয়ার জন্য। আমি শুধু দলের ভালো হয়  এজন্য চেষ্টা করেছি এবং সাথে  হাজার রান করতে পেরেছি।’

বাহিরের এ চেষ্টা চলতে থাকলে এবার আফগানিস্তানকে বিশ্বকাপে আটকানো কঠিন হবে। প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলাদেশকে হারিয়ে তারা বুঝিয়ে দিয়েছে যে, ক্রিকেটে উত্থানের গতিটায় ভালোই পাল্লা দিচ্ছে তারা।

টেস্টে কমপক্ষে ১০০০ রান করা ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সেরা গড় যাদের

ব্যাটসম্যান গড় জাতীয়তা
বাহির শাহ ১২১.৭৭ আফগানিস্তান
ডন ব্র্যাডম্যান ৯৫.১৪ অস্ট্রেলিয়া
ভিজয় মারচেন্ট ৭১.৬৪ ভারত
জর্জ হেডলি ৬৯.৮৬ ওয়েস্ট ইন্ডিজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: