Home » খেলাধুলা » জিদান এর সময় প্রায় শেষ
জিদান এর সময় প্রায় শেষ
জিদান এর সময় প্রায় শেষ

জিদান এর সময় প্রায় শেষ

কোচিং ক্যারিয়ারের শুরুতেই অবিশ্বাস্য সাফল্য পাওয়ার পর যে এখন মুদ্রার উল্টো পিঠটাও দেখতে শুরু করেছেন!রিয়াল মাদ্রিদের  কোচ  জিনেদিন জিদান। তাহলে কি অবশেষে সমাপ্তির ডাক শুনতে পেয়েছেন জিনেদিন জিদান? ফরাসি কিংবদন্তির কথা শুনে মনে  হচ্ছে ছয় মাস পর আর  রিয়াল মাদ্রিদের কোচ থাকবেন না।

২০১৬ সালের জানুয়ারিতে মৌসুমের মাঝপথে ফরাসি কিংবদন্তি জিদান রিয়াল মাদ্রিদের  দায়িত্ব   পেয়েছিলেন রাফায়েল বেনিতেজকে  বরখাস্ত করার পর। ফরাসি কিংবদন্তি দায়িত্ব বুঝে নেওয়ার পর প্রায় দুই বছর তাঁর অধীনে স্বপ্নের মতো কাটিয়েছে  রিয়াল মাদ্রিদ।তার অধিনে এই দুই বছরে রিয়াল একটি লা লিগা, দুটি চ্যাম্পিয়নস লিগ, দুটি ক্লাব বিশ্বকাপ, দুটি উয়েফা সুপার কাপ ও একটি স্প্যানিশ সুপার কাপ জিতেছে। তাইতো বর্ষসেরা কোচ ও নির্বাচিত হলেন ফরাসি কিংবদন্তি জিদান।

কিন্তু হাসিমুখ নেই জিদানের। কারন  সেই রিয়াল  তার অধিনে এই মৌসুমে হঠাৎ করেই যেন ছন্দহারা, একেবারে অচেনা। লিগে ১৭ ম্যাচে ৩২ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার ৪ নম্বরে। ওদিকে ১৮ ম্যাচে ৪৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী বার্সেলোনা। ৩৯ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ, ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে তিনে ভ্যালেন্সিয়া। মৌসুমের অর্ধেক না যেতেই ১৬ পয়েন্টের ব্যবধান বার্সার সঙ্গে রিয়াল মাদ্রিদের।

এদিকে রিয়াল ডিফেন্ডার মার্সেলো পর্যন্ত ,গত রোববার লিগে সেল্টা ভিগোর সঙ্গে নিজেরা ২-২ গোলে ড্রয়ের পর বলেছেন যে, ‘মনে হচ্ছে, আমরা ডুবে যাচ্ছি।’ আর রিয়াল  যদি ডুবে যায় তাহলে জিদান কি কোচ হিসেবে  রিয়াল মাদ্রিদে তাকতে পারবেন?
অথচ এই জিদানের সময়ই যখন রিয়াল মাদ্রিদের সুসময় চলছিল, তখন তাঁর প্রশংসায় পঞ্চমুখ ছিলেন সবাই। আর ওই সময়েও পা মাটিতে রেখে জিদান বারবার বলে গেছেন, সবকিছুই ক্ষণস্থায়ী। খারাপ সময়ের জন্যও তৈরি থাকতে হবে। নিজেও তৈরি ছিলেন তা না হলে,  কি আর ওই কথা বলেন। তবে বাস্তবে খারাপ সময়ে  যে কতটা ঝড় ঝাপটা আসতে পারে, সেটা বুঝতে পারছেন এখন তিনি নিজেই। সেজন্যই তো বলেন, ‘জিনেদিন জিদান এখন আর রিয়াল মাদ্রিদের খেলোয়াড় নয়। এখন আর ওই জিদানের অস্তিত্ব নেই। এখন যে জিদান আছে, সে রিয়াল মাদ্রিদের    একজন কোচ মাত্র।

তাইতো তাকে এই উত্থান-পতনের মধ্য দিয়েই রিয়ালের ক্যারিয়ার গড়তে হবে। রিয়ালের খেলোয়াড় হিসেবে আমি যেমন সুরক্ষিত ছিলাম, কোচ হিসেবে  কিন্তু তা নই।’

এই খারাপ সময়টা দীর্ঘস্থায়ী হলে যে তিনি রিয়ালের কোচ থাকতে পারবেন না, তাও ভালো জানা  আছে জিদানের কিন্তু সেই সুরক্ষটাতো এখন নেই।  বাস্তবতা মেনে নিয়েই  জিদান তাই বলছেন, ‘আমি জানি, একটা সময় আসবে যখন আমি আর রিয়ালের কোচ থাকব না। সুতরাং যত দিন আছি, আমি সাফল্যের জন্য সর্বোচ্চটা দিয়ে চেষ্টা করবো।

তাইতো রিয়াল মাদ্রিদ কোচ জিদানকে জিগাসা করা হয়েছিল যে আর কত দিন থাকতে পারবেন বলে মনে হচ্ছে?  সেই প্রশ্নেরেউত্তরে সরাসরি  কোন জবাব না দিলেও একটা আভাস কিন্তু দিয়েছেন জিদান যে, ‘আমি নিজেই নিজেকে বলি, যদি তোমার বাকি থাকে আর  ১০ দিন তাহলে  সে সময়টাই সর্বোচ্চ কাজে লাগাও। যদি ৬ মাস হয়, তাহলে ওই ৬ মাসে সর্বোচ্চটা দাও। এর চেয়ে দূরের সময়ের কথা আমি ভাবি না। আমি জানি,আমি রিয়ালের কোচহিসাবে ১০ বছর  থাকব না।’  জিদান তাই, কী করতে হবে, বুঝতে পারছেন যেহেতু সময়টা কম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: