Home » খেলাধুলা » ক্রিকেট » দক্ষিণ আফ্রিকার কারনেই ম্যাচে ফিরল ভারত
দক্ষিণ আফ্রিকার কারনেই ম্যাচে ফিরল ভারত
দক্ষিণ আফ্রিকার কারনেই ম্যাচে ফিরল ভারত

দক্ষিণ আফ্রিকার কারনেই ম্যাচে ফিরল ভারত

খেলাটাযে ক্রিকেট আর এজন্যই হুট করে ঘটে যায় অনেক কিছু যার আগাম কোন সংবাদ বলা যায় না। আর সে জন্যই দক্ষিণ আফ্রিকা ও ভারতের মধ্যকার দ্বিতীয় টেস্টে আতিথেয়তার আপ্যায়ন মেটানোর জন্য কি না, ভারতকে ম্যাচে ফেরানোর দায়িত্ব বুঝে নিল স্বাগতিকরা। কারণ দিনটা পুরোপুরিই দক্ষিণ আফ্রিকার ছিল। কিন্তু কে জানে মাত্র ৫ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বসবে প্রোটিয়া দলের ব্যাটসম্যানরা। তাই ৬ উইকেটে ২৬৯ রান করে প্রথম দিন শেষ করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা, তানাহলে স্কোরটা ভিন্ন হতো আর দিন শেষে স্বাগতিকরাই এগিয়ে থাকতো। টসে জিতে ব্যাটিং বেছে নেওয়ার সময় এমন কিছু নিশ্চয় মাথায় ছিল না ফাফ ডু প্লেসির।
এদিকে টসের মুহূর্তেই চমকে দিয়েছেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। আগের ম্যাচের সেরা তিন পারফরমারের মধ্যে দুজনকে ছাড়াই সেঞ্চুরিয়নে নেমেছে ভারত। সে সিদ্ধান্ত ভুল কি না সেটা প্রথম দিনেই বলা ঠিক না, তবে আজ অন্তত সঠিক মনে হচ্ছে না। কেপটাউনে ৬ উইকেট পেয়েছেন ভুবনেশ্বর কুমার। দলের সেরা বোলারও এই সুইং বোলার। কিন্তু সেঞ্চুরিয়নের পিচে ভুবনেশ্বরকে মনে ধরেনি টিম ম্যানেজমেন্টের। তাঁর জায়গায় ঢুকেছেন ইশান্ত শর্মা। কপালগুণে এবি ডি ভিলিয়ার্সকে আউটও করেছেন ইশান্ত। কিন্তু যে উদ্দেশ্যে তাঁকে নেওয়া, সেই গতি কিংবা বাউন্স
দুটোর কোনটাই দেখাতে পারেননি তিনি।

এদিকে ব্যাট হাতে ব্যর্থতার কারণে দল থেকে ছিটকে পড়েছেন ঋদ্ধিমান সাহ যদিও প্রথম টেস্টে ১০টি ক্যাচ ধরে পেসারদের সর্বোচ্চ সহযোগিতা করেছলেন।তাই তাঁর বদলি হিসেবে প্রায় এক বছর পর ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি পার্থিব প্যাটেলকে নামালেন দ্বিতীয় টেস্ট খেলাতে। সেঞ্চুরির অপেক্ষায় থাকা মার্করামের ক্যাচটা ধরেছেন পার্থিব প্যাটেল। আবার ভারতকে পোড়াবে ফর্মের জন্য লড়তে থাকা হাশিম আমলার ক্যাচ ফেলার জন্য।যদি প্যাটেল ক্যাচ না ছাড়তো তাহলে ৩০ রানেই ফিরে যেতে হতো হাশিম আমলাকে। কিন্তু ইশান্তের বলে লেগ সাইডের ক্যাচটা
ধরতে পারেননি প্যাটেলএবং সেই প্যাটেলের সুযোগটা তাই কাজে লাগিয়ে ৮২ রান করেছেন আমলা। আউট হওয়ার দায়টা অবশ্য ডু প্লেসির। হার্দিক পান্ডিয়ার একটি শর্ট বল ব্যাকফুটে খেলেছিলেন। ডু প্লেসির ডাক শুনে দৌড় দিয়েছিলেন। কিন্তু পান্ডিয়ার দুর্দান্ত ফিল্ডিংয়ে আর অন্য প্রান্তে সময়মতো পৌঁছাতে পারেননি। খানিক পরেই আরেকটি শর্ট বলে অমনইভাকব রান আউট হয়েছেন ফিল্যান্ডার। এবার অবশ্য ডু প্লেসির কোনো দায় ছিল না। এর মাঝেই মাত্র এক বল খেলেই অশ্বিনের বলে আউট হয়েছেন ডি কক। ৩ উইকেটে ২৪৬ রান থেকে মুহূর্তেই ৬ উইকেটে ২৫১ রান!
এর আগে ভারতের ওপর অত্যাচার করার দায়িত্ব বুঝে নিয়েছিলেন দুই ওপেনার। ডিন এলগার ও এইডান মার্করামের জুটিটা ভাঙে ৮৫ রানে। বিস্ময়করভাবে উদ্বোধনী জুটি ভাঙার কাজটা করেছেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। মার্করামকে টেস্টে দ্বিতীয় নার্ভাস নাইনটিজের ফাঁদে ফেলে (৯৪) রানে আউট করে। তবে এর চেয়েও বিস্ময় জাগিয়েছে, প্রথম বলেই অশ্বিনের বলের দুর্দান্ত টার্ন। অথচ উইকেটে স্পিনারদের জন্য কিছু ছিল না বলে আগের ম্যাচেই মাত্র ৮ ওভার বল করেছিলেন এই অফ স্পিনার। সেঞ্চুরিয়নের উইকেট আরও বেশি পেস-বান্ধব করার কথাই শোনা গিয়েছিল। অশ্বিনের ৩ উইকেট পাওয়াটা কি ভিন্ন কিছুর আভাস দিচ্ছে না।

ভারতীয় অধিনায়ক কোহলি আশা করবেন, তাঁর তৃতীয় পরিবর্তন অন্তত হতাশ করবেন না তাঁকে। পরিবর্তনের ঢেউয়ে পাল ওড়ানো ভারত যে শিখর ধাওয়ানের পরিবর্তে লোকেশ রাহুলকে নিয়ে নেমেছে এ টেস্টে। পরিবর্তনটা ভারতের জন্য বিভ্রান্তিতে পরা নাকি শামি-ইশান্তরা ব্যর্থ,সেটা বুঝা যাবে সেটা দক্ষিণ আফ্রিকার বোলিংয়ের সময়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: