Home » জাতীয় » দুর্ঘটনার আগে ফেসবুকে নিহতদের স্মৃতিকথা!
ইউএস-বাংলা এয়ার লাইন্স বিধ্বস্তে নিহত ১৭ বাংলাদেশির মরদেহ শনাক্ত
ইউএস-বাংলা এয়ার লাইন্স বিধ্বস্তে নিহত ১৭ বাংলাদেশির মরদেহ শনাক্ত

দুর্ঘটনার আগে ফেসবুকে নিহতদের স্মৃতিকথা!

কেভেবে ছিল যে বিমান ভ্রমনের আগে ফেসবুকে ছাড়া ছবিগুলো, তাদের জীবনের শেষ স্মৃতিকথা। যদি তারা জানতো তাহলে তো তারা বিমান ভ্রমণই করত না। গতকাল নেপালে বিমান দুর্ঘটনার আগে নিহতদের ফেসবুকে ছাড়া স্মৃতিগুলো সম্পর্কেই এমন কথা বলা হচ্ছে।

অপরদিকে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম এখন দিনকে দিন জনজীবনের অপরিহার্য অনুষঙ্গ হয়ে উঠেছে মানুষ তাঁর ব্যক্তিজীবনের আনন্দবেদনা, সাফল্যব্যর্থতা, পাওয়াহারানোসহ বিভিন্ন বিষয়ে তাঁদের কথা তুলে ধরেন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে হাতে হাতে স্মার্টফোন থাকায় দ্রুত মন্তব্য লিখে তার সঙ্গে ছবি তুলে আপলোড করা খুব সহজ

গতকাল ইউএসবাংলার যে ড্যাশ বোম্বার্ডিয়ার বিমানটি নেপালের কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত হয়েছে, তার যাত্রীদেরও অনেকে যাত্রার আগমুহূর্তে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ছবিসহ নেপালযাত্রার কথা ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছিলেন। এই ছবি আর মন্তব্যগুলো  এখন তাঁদের জীবনে স্মৃতি হয়ে আছে

এদিকে ফেসবুকে ছাড়া পোস্ট সম্পর্কে সোনামণি নামের এক যাত্রী বলেন,তৃতীয়বার মধুচন্দ্রিমায় কাঠমান্ডু যাচ্ছি সঙ্গে মেহেদি হাসান রোমিও, ছবি দিলাম চারটি’—এই পোস্ট দিয়েছেন সোনামণি পোস্টের সঙ্গে ব্যাগ হাতে শাহজালালের বহির্গমন লাউঞ্জে তাঁর একটি বড় ছবি পাশে মেহেদির সঙ্গে একটি ছবি এবং তাঁর দুটি ছবি এবারের মধুচন্দ্রিমা যে মধুর হয়নি তাঁদের জীবনে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না

বিমান দুঘটনায় নিহত হওয়া আরেক যাত্রী বিমানে ওঠার আগে সবার দোয়া চেয়ে পোস্ট দিয়েছিলেন অ্যানি প্রিয়ক সঙ্গে এফ এইচ প্রিয়ক তাঁরাও বহির্গমন লাউঞ্জে ট্রলিব্যাগ নিয়ে হেঁটে  যাওয়ার ছবি দিয়েছেন দুটি তাঁরা লিখেছেন, ‘রেডি টু ফ্লাই টু কাঠমান্ডু ফ্রম হজরত শাহজালাল ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টপ্লিজ কিপ আস অন ইয়োর প্রেয়ার

ইমরানা কবির তাঁর সঙ্গী রকিবুল হাসানের সঙ্গে কাঠমান্ডু যাচ্ছিলেন তিনি গাড়িতে করে বিমানবন্দরে যাওয়া, বিমানবন্দরের যাত্রী লাউঞ্জে বসে থাকার বিভিন্ন মুহূর্তের ছবি পোস্ট করেছেন ছুটিতে নেপাল যাচ্ছেনশুধু এটুকুই মন্তব্য করেছেন পরে অবশ্য জানা যায়, ইমরানা কবির রাজশাহী প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক, স্বামীর সঙ্গে তিনি নেপালে যাচ্ছিলেন

টা টা মাই কান্ট্রি ফর ফাইভ ডেবলে মন্তব্য করে হ্যাট মাথায় একটি ছবি পোস্ট দিয়েছিলেন তরুণ পিয়াস রণি, বিমানবন্দরের যাত্রী লাউঞ্জ থেকেতিনিও বিমান দুঘটনায় মারা যান

সম্ভবত তাঁরা হবেন দুই বন্ধু অথবা থাকতে পারে আত্মীয়তার সম্পর্কও বিমানে উঠে পাশাপাশি আসনে বসেভিদেখাচ্ছেন তাঁরা এই ছবি পোস্ট দিয়েছেন তাহসিন রহমান লিখেছেন, তানিম শেখের সঙ্গে যাচ্ছেন নেপালে, তবে বোঝা যাচ্ছে না কে কোন জন যাত্রী লাউঞ্জে বসে হালকা খাবারের ছবি পোস্ট দিয়েছেন পরিকল্পনা কমিশনের কর্মকর্তা উম্মে সালমা অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের কর্মকর্তা নাজিয়া আফরিন চৌধুরী অনেকে আবার দুর্ঘটনাকবলিত বিমানের যাত্রী হিসেবে থাকা তাঁদের আত্মীয় স্বজনের ছবি দিয়ে তাঁদের ব্যাপারে জানতে চেয়েছেন রফিক জামান, সানজিদা হক তাঁদের শিশুপুত্র অনিরুদ্ধর ছবি দিয়েছেন রাকা নশীন নাওয়ার নামের একজন রাকা তাঁর স্ট্যাটাসে খালাতো ভাই রফিকের পরিবারের খবর জানতে চেয়েছেন বিমানটির কোপাইলট পৃথুলা রশিদের ছবি দিয়েছেন আশিকুর রহমান তিনি নিহত পৃথুলার আত্মার মাগফিরাত কামনা করেছেনফেসবুকে ছাড়া নিহতদের এতোসব পোস্ট এখন শুধুই স্মৃতি হয়ে থাকবে

আরো পড়ুন-

ভয়াবহ বিমান দুর্ঘটনার জন্য সাকিব-তামিম-মুশফিকরাও শোকাহত!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: