Home » বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি » প্রযুক্তির খবর » নতুন বছরে ৪জি এমএনসি স্যাটেলাইট (বঙ্গবন্ধু -১) সুবিধা
নতুন বছরে ৪জি এমএনসি স্যাটেলাইট (বঙ্গবন্ধু -১) সুবিধা
নতুন বছরে ৪জি এমএনসি স্যাটেলাইট (বঙ্গবন্ধু -১) সুবিধা

নতুন বছরে ৪জি এমএনসি স্যাটেলাইট (বঙ্গবন্ধু -১) সুবিধা

বাংলাদেশের প্রযুক্তি প্রেমিদের জন্য চমক এনে দিলেন সরকার। এই প্রথম ৪জি এমএনসি স্যাটেলাইট (বঙ্গবন্ধু -১) মহাকাশে উৎক্ষেপন হতে যাচ্ছে। ইন্টারনেট যগতের নতুন সীমা রেখা তৈরী করতে দেশের টেলিকমিউনিকেশন, তথ্য প্রযুক্তি এবং সংশ্লিষ্ট শিল্পের জন্য এই স্যাটেলাইটটি হবে বড় থরনের অগ্রগতি।

বাংলাদেশ ২০১৮ সালে কিছু মাইল স্টোন উন্নয়ন প্রত্যক্ষ করতে যাচ্ছে। নতুন বছরে বাংলাদেশ দেশের প্রথম যোগাযোগ স্যাটেলাইট ”বঙ্গবন্ধু-১” মহাকাশে উৎক্ষেপন করবে। টেলিকম রেগুলেটর ফোরজি/এলটিই সেবা চালু করতে ইতোমধ্যেই কার্যক্রম শুরু করেছে এবং সেবা প্রদানে মোবাইল নম্বর এমএনপি অপারেটর নিয়োগ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশন (বিটিআরসি) দেশে ফোরজি সেবা চালু করতে ১৪ ফেব্রুয়ারি ফোরজি লাইসেন্স ইস্যু করবে। এর আগে ১৩ ফেব্রুয়ারি তিনটি ভিন্ন ব্যান্ডের জন্য অকশন দেয়া হবে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেন, ২০১৮ সালে সকল উন্নয়ন কর্মকান্ড দৃশ্যমান হবে। জনগণ এর সুফল পাবে। তিনি আওয়ামীলীগ নেতৃত্বাধীন সরকার গৃহীত উন্নয়ন কর্মসূচীর উল্লেখ করে বলেন, সরকার আধুনিক যোগাযোগ ব্যবস্থার সুফলবয়ে আনতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। দেশের প্রথম যোগাযোগ স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু -১ এখন মহাকাশে উৎক্শেপনের অপেক্ষায় আছে। এটির সফল প্রস্তুত কাজ ইতোমধ্যেই শেষ হয়েছে। এটি উৎক্ষেপনের পর বাংলাদেশ ৫৭তম দেশ হিসেবে স্যাটেলাইট ওয়নিংক্লাবে যোগ দিবে।

বাংলাদেশ ২০১৫ সালের নভেম্বরে ফ্রান্সের থালেস এলেনিয়া স্পেসের সঙ্গে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করে। স্যাটেলাইটটিতে ৪০টি ট্রান্সপোন্ডার রয়েছে। এটি সার্ক সদস্য রাষ্ট্রসমূহ, ইন্দোনেশিয়া এবং ফিলিপাইনে ও তুর্কমেনিস্তান, কিরগিজস্তান ও তাজিকিস্তানের মতো দেশে সেবা প্রদানে সক্ষম হবে। একটি ট্রান্সপোন্ডার ৩৬ এমএইচ’র সমান।

বাংলাদেশ টেলিভিশন চ্যানেল, টেলিফোন এবং বেতার সংযোগের জন্য স্যাটেলাইট ভাড়া বাবদ বছরে ১৪ মিলিয়ন মাকির্ন ডলার ব্যায় করে। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট চালু হবার পর দেশ বছরে ১১০ থেকে ১২০ কোটি টাকার বৈদেশিক মূদ্রা সাশ্রয় করতে সক্ষম হবে।

বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ বলেন, দুটি নতুন কোম্পানি ফোরজি / এলটিই লাইসেন্স নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। তবে তিনি কোম্পানি দুটির নাম প্রকাশে অস্বীকার করেন। নতুন বছরে দীর্ঘ প্রতিক্ষিত মোবাইল নম্বর পোর্টাবিলিটি (এমএনপি) চালু করার মাধ্যমে যোগাযোগ সেক্টরের আরো একটি উইং সংযুক্তহতে যাচ্ছে।

বিটিআরসি গত ৩০ নভেম্বর এমএনপি যৌথ কোম্পানি ইনফোজিলিয়ন বিডি টেলিটক কনসোর্টিয়ামের কাছে লাইসেন্স হস্তান্তর করে। কোম্পানির ব্যাস্থাপনা পরিচালক মাবরুর হোসেন বলেন, আমরা লাইসেন্সের শর্তানুযায়ি আগামী মার্চ মাসের মধ্যে সেবা প্রদানে প্রস্তুত। কোম্পানি অবশ্যই লাইসেন্স পাবার ১৮০ দিনের মধ্যে সেবা প্রদান করবে।
মোবাইল হ্যান্ডসেট সংযোজনে স্থানীয় কোম্পানিগুলোও এগিয়ে আসছে। ওয়ালটনের অনুসরণে স্থানীয় দু’টি কোম্পানি ডব্লিউই ও সিম্পনি মোবাইল হ্যান্ডসেট সংযোজনের লক্ষ্যে কাজ শুরু করেছে। এ ছাড়া দক্ষিণ কোরিয়ার বিশাল কোম্পানি স্যামসাং স্থানীয়ভাবে হ্যান্ডসেট তৈরির আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

তিনটি স্থানীয় কোম্পানি মাসে ১০ লাখ হ্যান্ডসেট তৈরি করবে। বিটিআরসি’র সূত্রে জানা যায়, বছরে ৩ কোটি হ্যান্ডসেট বিক্রি হয়। এর সবই আমদানিকৃত।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় সম্প্রতি বাংলাদেশ ডাক বিভাগে ‘ডাক টাকা’ নামে একটি ডিজিটাল ওয়ালেট চালু করেছেন। ব্যাংকে একাউন্ট নেই তৃণমূলের এমন মানুষদের ইলেকট্রনিক সিস্টেমের মাধ্যমে ব্যাংকিং চ্যানেলে সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে এই ওয়ালেট চালু করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: