Home » খেলাধুলা » পিএসজিতে ব্রাজিলিয়ান বনাম আর্জেন্টাইনের নতুন দ্বন্দ
পিএসজিতে ব্রাজিলিয়ান বনাম আর্জেন্টাইন নতুন দ্বন্দ
পিএসজিতে ব্রাজিলিয়ান বনাম আর্জেন্টাইন নতুন দ্বন্দ

পিএসজিতে ব্রাজিলিয়ান বনাম আর্জেন্টাইনের নতুন দ্বন্দ

ফুটবলে ব্রাজিল আর আর্জেন্টিনা যেমন চির প্রতিদ্বন্দী ঠিক তেমনি তাদের ভক্তরাও। আর খেলোয়াররাই বা বাদ কোথাই। মেসি আর নেইমারকে নিয়ে তো রিতিমতো খুব আলোচনা পাড়ার মোরে মোরে চায়ের দোকানে আর ক্লাবে ক্লাবে।গত বছরের আগষ্ট এ নেইমার রেকর্ড ট্রান্সফার ফি আর বার্সা ত্যাগ করে যোগ হন পিএসজিতে।নেইমারের আগমনে পিএসজির  অন্যান্য খেলোয়ার বিশেষ করে এডিসন কাভানি আর আর্জেন্টাইন খেলোয়াড়েরা জ্বলে উঠে বিভক্তির আগুণ।

ম্যাচে কোন পেনাল্টি নেওয়া নিয়ে নেইমার ও এডিনসন কাভানির দ্বন্দের সূত্র ধরে পিএসজিতে দেখা দেয় বিভক্তি। এখন পিএসজিতে খেলোয়াড়েরা দুই শিবিরে বিভক্ত। যার এক পক্ষে ছিলেন নেইমারসহ ব্রাজিলিয়ান খেলোয়াড়েরা অন্য পক্ষে উরুগুইয়ান কাভানিসহ পিএসজির আর্জেন্টাইন খেলোয়াড়েরা।

কোন কারন বশত কিছুদিন দ্বন্দটি থেমেই গিয়েছিল কিন্তু তার পরেও ভেতরে ভেতরে যে তা তুসের আগুন হয়েই জ্বলছিল।নতুন করে আবার দ্বন্দ্বটার মাথা চাড়া দেওয়াতেই তার প্রমাণ। পিএসজিতে আবার ব্রাজিলিয়ান বনাম উরুগুইয়ান-আর্জেন্টাইন দ্বন্দ্ব প্রকট!

নতুন করে দ্বন্দটি নেইমার নন, তুসের আগুনে আবার কাঠি জ্বালানে এবার ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার থিয়াগো সিলভা। পিএসজির অধিনায়কত্বের আর্মব্র্যান্ডও আবার তার বাহুতেই। অধিনায়ক থিয়গো সিলভার জ্বালাময়ী মন্তব্যকে কেন্দ্র করেই পুরোনো দ্বন্দ্বটা জ্বলে উঠেছে দাউ দাউ করে।

 

নতুন দ্বন্দ্বের উৎসে সেই নেইমারই। তার জন্যই তো কাভানিসহ পিএসজিতে খেলা দুই আর্জেন্টাইন হাভিয়ের পাস্তোরে ও অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়ার যত ক্ষোভ।

শীতকালীন ছুটি শেষে ক্লাবে ফিরতে দেরি করেছেন কাভানি, পাস্তোরে, ডি মারিয়ারা। শুধু তাই নয় অ্যামিনেসের বিপক্ষে সেই ম্যাচে খেলেননি বেশি ছুটি কাটানো কাভানি, পাস্তোরেরা।

দলের অধিনায়ক হিসেবে সিলভা এ নিয়ে তাদের দু-চার কথা বলতেই পারেন। কিন্তু ক্ষোভটা নাকি অন্য সুরের ছিল বলে  ম্যাচ শেষে মিক্সড জোনেই কাভানি ও পাস্তোরের সঙ্গে বেঁধে যায় সিলভার।এরই মধ্যে নাকি সিলভা ইনস্টাগ্রামে বিস্ফোরক  মন্তব্যও প্রকাশ করেছেন।

 

গত কিছুদিন ধরেই গুঞ্জন পিএসজি ছাড়ার প্রস্তাব নাকি  আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড পাস্তোরে। সেই প্রসঙ্গ টেনে সিলভা নাকি লিখেছেন, ‘ক্লাবের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, আমাদের সবার উচিত মিলেমিশে থাকা। কিন্তু যা হচ্ছে তা এই গ্রুপটির জন্য ভালো কিছু নয়। যা করবেন, তার আগে অবশ্যই আপনাকে ভাবতে হবে। এটা দলের কারো জন্যই ভালো নয়। পাস্তোরে ও কাভানির ব্যাপারটি আলাদা।’

 

কাভানি, পাস্তোরে, ডি মারিয়াদের ক্ষোভের কারণ এটাই। তারা কিছুতেই নেইমারকে বেশি সুবিধা দেওয়াটা মেনে নিতে পারছেন না। তাছাড়া নেইমার কিলিয়ান এমবাপে আসার পর পাস্তোরে, ডি মারিয়ারা ম্যাচও বেশি খেলতে পারছেন না। যা তাদের ক্ষোভের আগুণটা আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। আর সেই ক্ষোভের বহিপ্রকাশ ঘটাচ্ছেন নানাভাবে। সিলভা, নেইমার, দানি আলভেস, লুকাস মৌরা, মারকুয়েনহোসরাও পিএসজিতে গড়ে তুলেছেন শক্ত বলয়।

 

শেষ পর্যন্ত অহংবোধের এই দ্বন্দ্ব ব্রাজিলিয়ানরা নাকি, উরুগুইয়ান-আর্জেন্টাইন বলয় জিতবে সেটা অন্য বিষয়। তবে ফুটবলবোদ্ধারা অভ্যন্তরিণ এই দ্বন্দ্বে সর্বনাশ দেখছেন ক্লাব পিএসজির। আর কদিন পরই সাক্ষাৎ দৈত্য রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। তার আগে খেলোয়াড়দের নতুন করে কলহে জড়িয়ে পড়ায় পিএসজির কোচ-কর্তারাও নিশ্চয় চিন্তিত।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: