Home » অর্থনীতি » পেঁয়াজের নতুন দরে ফিরবে কি স্বস্তি?

পেঁয়াজের নতুন দরে ফিরবে কি স্বস্তি?

ভারতের বাজারে তরতর করে কমে যাচ্ছে পেয়াঁজের দাম। দেশটির সবথেকে বড় পাইকারি বাজার মহারাষ্ট্রের লাসালগাঁওয়ে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম সাড়ে ১৬ রুপিতে, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ২১ টাকার একটু বেশি। পেয়াঁজের এই দর এক মাস আগের তুলনায় ৫০ শতাংশ কমে গিয়েছে।

প্রতিবেশী দেশে পেয়াঁজের দাম কমে যাওয়াতে বাংলাদেশের বাজারেও কিছুটা স্বস্তি ফিরেছে। পাইকারি বাজারগুলোতে ভারতীয় ও দেশি পেঁয়াজের দাম হ্রাস পেয়ে প্রতি কেজি ৪৫ টাকায় নেমেছে। বাজারগুলোর পাইকারি বিক্রেতাদের কাছ থেকে জানা গিয়েছে, ‘পেয়াঁজের দাম আগামী এক সপ্তাহে আরও কমে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।’

ঢাকায় খুচরা বাজার গুলোতে গতকাল বৃহস্পতিবার প্রতি কেজি দেশি ও ভারতীয় পেঁয়াজ বিক্রিয় করা হয়েছে ৫৫-৬৫ টাকায় । গত সপ্তাহের তুলনায় এ দর ৫ থেকে ১০ টাকা কমে গিয়েছে। অবশ্য গত বছরের এ সময়ের অপেক্ষা এ বছরের পেয়াঁজের দাম অনেক বেশি। সরকারি সংগঠন ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) হিসাবে, গত বছর এ সময়ে পেঁয়াজের দর ছিল কেজিপ্রতি ১৮-২৫ টাকা।

খারাপ আবহাওয়ার জন্য বাংলাদেশ ও ভারতে পেঁয়াজের উৎপাদন ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যাওয়ায় গত ঈদুল ফিতরের পর হতেই অপরিহার্য এ পণ্যের বাজার দর অনেক চড়া। ডিসেম্বরের প্রথমে দেশের বাজারে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজের দর ১৪০ টাকা ও ভারতীয় পেঁয়াজ ৯০ টাকায় উঠেছিল। এরপর জানুয়ারির শুরুতে নতুন দেশি পেঁয়াজ বাজারে আসতে শুরু করে। প্রথম দিকে তা কেজিপ্রতি ৯০ টাকা, পরে ৭০-৮০ টাকার মধ্যে বেচাকেনা হয়। ভারতের আড়ত নিয়ে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস-এর এক খবরে গতকাল বলা হয়, লাসালগাঁওয়ের ব্যবসায়ীরা দাম কমে যাওয়ায় রপ্তানিতে ন্যূনতম মূল্য কমানোর দাবি করেছেন। তাঁরা জানিয়েছেন, প্রতিটন ৭০০ মার্কিন ডলার দরে পেঁয়াজ রপ্তানি সম্ভব হচ্ছে না। এ মূল্য শুরুতে ৮৫০ ডলার ছিল, যা ১০ জানুয়ারি ১৫০ ডলার কমানো হয়।

বাংলাদেশ পেঁয়াজ আমদানির ক্ষেত্রে ভারতের ওপর নির্ভরশীল। দেশে বছরে প্রায় ১৮ লাখ টন পেঁয়াজ উৎপাদিত হয়। আরও ১০ লাখ টন আমদানি হয়। জানতে চাইলে পুরান ঢাকার শ্যামবাজারের একজন পেঁয়াজ আমদানিকারক নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ভারতে দর কমায় বাংলাদেশেও বাজার পড়তির দিকে। শ্যামবাজারে দেশি ও ভারতীয় দুই ধরনের পেঁয়াজই ৪৫-৪৬ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে বাজারে সবজির দরও কমেছে। বিভিন্ন ধরনের সবজি প্রতি কেজি ৩০ থেকে ৫০ টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে বড় বাজারে, যা আগের সপ্তাহের তুলনায় কেজিতে ৫-১০ টাকা কম। অন্যান্য পণ্যের দামে বিশেষ কোনো হেরফের হয়নি।

*মহারাষ্ট্রের লাসালগাঁওয়ে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দর ১৬ রুপি।
*নতুন এই দর এক মাস আগের তুলনায় ৫০ শতাংশ কম।
*বাংলাদেশের বাজারে স্বস্তি আসছে।
*পাইকারি বাজারে ভারতীয় ও দেশি পেঁয়াজ কেজিপ্রতি ৪৫ টাকায় নেমেছে ।
*আগামী এক সপ্তাহে পেয়াজের দাম আরও কমে যাবে বলে আশা করা যায় ।

আরো পড়ুন-

পেয়াজের ঝাঁঝে কাতর বাঙ্গালী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: