Home » জাতীয় » অপরাধ » প্রবাসে এসে বন্ধুর হাতে বন্ধু খুন; প্রমান ছুরির বাটের রক্ত
ফরিদপুরে ভাতিজার কোপে চাচার মৃত্যু, আহত ৩
ফরিদপুরে ভাতিজার কোপে চাচার মৃত্যু, আহত ৩

প্রবাসে এসে বন্ধুর হাতে বন্ধু খুন; প্রমান ছুরির বাটের রক্ত

চার ভারতীয় বন্ধু বাংলাদেশে লেখাপড়া করতেন। চার জনই চট্টগ্রামের একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইউএসটিসিতে লেখাপড়া করতো এবং একই ফ্ল্যাটে বসবাস করতো। চারজনই ভালো বন্ধু ছিলো কিন্তু হঠাৎ করেই তাদের মধ্যকার এক বন্ধুর খুন হয়। ওই দিন ফ্ল্যাটে চার বন্ধু ব্যতিত আর কেউ ছিলো না কিন্তু বাকি তিন বন্ধু জানায় তারা এই খুনের বিষয়ে কিছুই জানেন না। ফলে এই মৃত্যুর ঘটনা রহস্যময় থেকে যায়।

উল্লেখ্য যে, চট্টগ্রাম নগরের আবদুল হামিদ সড়কের লেকভিউ সোসাইটির একটি আবাসিক ভবনের পঞ্চম তলার ফ্ল্যাটে এই চার বন্ধু থাকতো। ২০১৭ সালের ১৪ ই জুলাই মোঃ শেখ বন্ধু খুন হয়। এরপর ঘটনাস্থল থেকে প্রমাণস্বরুপ রক্তমাখা ছুরি, ছুরির বাঁট এবং বিছানার চাদর পাওয়া যায়। এসব সামগ্রী উদ্ধার করে রক্তের ডিএনএ পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) ফরেনসিক ল্যাবে পাঠানো হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পিবিআই চট্টগ্রামের পরিদর্শক সন্তোষ কুমার চাকমা জানান, ডিএনএ পরীক্ষার ফলাফল অনুসারে চাদর ও ছুরিতে লেগে থাকা রক্তের নমুনা একই ব্যক্তির (আতিফ) হলেও ছুরির বাটের রক্তের নমুনা আলাদা এক ব্যক্তির। ছুরির বাটের রক্তের ডিএনএ র রিপোর্ট উইনসনের রক্তের সাথে মিলে যায়। কিন্তু, অপর বন্ধু গুরঙ্গ নিরাজের রক্তের নমুনার সঙ্গে ছুরির বাঁটে লেগে থাকা রক্তের নমুনার মিল পাওয়া যায়নি। এ ঘটনায় বিপাকে পড়তে হয় পুলিশকে।

অন্যদিকে আরেকটি ঘটনা পুলিশের কাজ সোজা করে দেয়। পুলিশ উইনসনকে জিজ্ঞাসাবাদ করার সময় হঠাৎ করে তিনি স্মৃতিভ্রষ্ট হওয়ার দাবি করেন। কিন্তু চিকিৎসক জানান তার কোনো প্রকার স্মৃতিভ্রষ্ট হয়নি। একারনে পুলিশের সন্দেহ আরও বেড়ে যায়।

সম্প্রতি পুলিশের তদন্তকারী বিভাগ জানতে পারেন, চার বন্ধু ব্যতিত তাদের আরও এক বান্ধবীও তাদের সাথে একই ওই ফ্ল্যাটে বসবাস করতো। এ ঘটনা যেন পুরো মামলাটাকেই ঘুরিয়ে দিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: