Home » ফরিদপুর কণ্ঠ » ফরিদপুরে স্কুল ছাত্র অন্তরের খুনিদের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল
ফরিদপুরে স্কুল ছাত্র অন্তরের খুনিদের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল
ফরিদপুরে স্কুল ছাত্র অন্তরের খুনিদের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল

ফরিদপুরে স্কুল ছাত্র অন্তরের খুনিদের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল

ফরিদপুরের নগরকান্দার তালমা নাজিমুদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেনীর ছাত্র অন্তরের খুনিদের বিচারের দাবীতে শুক্রবার (২৯ জুন) দুপুরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী। বেলা ১১টার দিকে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা অ্যাডভোকেট জামাল হোসেনের নেতৃত্বে কয়েক হাজার এলাকাবাসী বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি পাগলপাড়া গ্রাম থেকে বের হয়ে বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিন করে পাগলপাড়া বাজারে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা জামাল হোসেন মিয়া, জেলা পরিষদের সদস্য কামাল হোসেন, নিহত অন্তরের মা জান্নাতি বেগমসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। সমাবেশ থেকে বক্তারা অন্তরের খুনের সাথে জড়িত মুলহোতাদের আটক করে সর্বোচ্চ বিচারের আওতায় আনার দাবী জানান।

এদিকে, আলাউদ্দিন মাতুব্বর অন্তরের খুনের কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন মামলার অভিযুক্ত আসামি মাহবুবুল আলম। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নগরকান্দা থানার এসআই কবির হোসেন জানান, মামলার অন্যতম আসামি মাহাবুবুল আলম অন্তর হত্যাকেণ্ডে নিজের জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছে। সেখানে সে সহ আরও চারজন জড়িত ছিল।

ফরিদপুরের তালমায় অপহরনের পর স্কুল ছাত্রের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

ফরিদপুরের তালমায় অপহরনের পর স্কুল ছাত্রের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

গত ৭ জুন রাত ৮টার দিকে তারাবির নামাযের উদ্দেশ্যে বাসা থেকে বের হয়ে আর ঘরে ফেরেনি স্কুল ছাত্র অন্তর। পরদিন সকালে অচেনা নম্বর থেকে অন্তরের মায়ের ফোন আসে এবং তারা তার কাছে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। পরে ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা দেবার পরও অন্তরকে ফেরত দেয়নি অপহরনকারীরা। এ ঘটনায় অন্তরের মা বাদী হয়ে নগরকান্দা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার সূত্র ধরে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে আটক করা হয় ৩ জনকে। অপহরণকারীদের মোবাইল ফোন ট্র্যাকিং করে আটক করা হয় মাহাবুবুল ও তার ভাই জোবায়ের আলমকে। আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদের সূত্র ধরেই বুধবার রাত ১২টার দিকে তালমা ইউনিয়নের মানিকদী গ্রামের কাটাখালী খালপাড়ে মাধা নিচের দিকে করে হাত পা বাধা অবস্থায় মাটিচাপা দেয়া অন্তরের লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ জানায়, অপহরনের পর রাতেই তাকে গলায় গামছা পেচিয়ে হত্যা করে মাটিতে পুতে রাখে হত্যাকারীরা। পরে তারা মুক্তিপণ চেয়ে অন্তরের মায়ের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়। অন্তুরের খুনের বিষয়ে আটককৃতদের রিমান্ডে নিয়ে বেশ কিছু তথ্য পেয়েছে বলে জানিয়েছে নগরকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা। তবে তদন্তের স্বার্থে তা বলতে রাজী হয়নি পুলিশ।

ফরিদপুরের তালমায় অপহরনের পর স্কুল ছাত্রের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: