Home » নারী ও শিশু » বগুড়ায় স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর মাথা ন্যাড়া করে দেয়ার অভিযোগ
বগুড়ায় স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর মাথা ন্যাড়া করে দেয়ার অভিযোগ
বগুড়ায় স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর মাথা ন্যাড়া করে দেয়ার অভিযোগ

বগুড়ায় স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর মাথা ন্যাড়া করে দেয়ার অভিযোগ

বগুড়া জেলার ধুনট উপজেলায় আসমা খাতুন (২৬) নামের এক গৃহবধূকে নির্যাতনের পর মাথা ন্যাড়া করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামী বকুল হোসেনের (৩৫) বিরুদ্ধে।

সোমবার (১৬ এপ্রিল) সন্ধ্যার দিকে উপজেলার ভান্ডারবাড়ী ইউনিয়নের মাধবডাঙা গ্রামে নিজেদের বাড়িতে আসমার ওপর এই নির্যাতন চালানো হয়। শেষে স্থানীয়দের সহায়তার আসমার বাবা ইসমাইল হোসেন ও অন্যান্য স্বজনরা তাকে উদ্ধার করার পর ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

পারিবারিক কলহলের জের ধরে প্রায় ২০ দিন আগে স্বামী তার স্ত্রীর মাথার চুল কাঁচি দিয়ে কেটে ফেলে। এরপর পুড়ো মাথাই ন্যাড়া করে দেয়। ওই গৃহবধূ এখন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তিরত অবস্থায় রয়েছেন। এই ঘটনাটিতে এখনও কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

স্থানীয়রা বলেন, মাধবডাঙা গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে বকুল হোসেনের সঙ্গে প্রায় ৮ বছর আগে উপজেলার সদরপাড়া গ্রামের আসমার বিয়ে হয়। তাদের সংসারে ২ ছেলে সন্তান রয়েছে।

কিন্তু বিয়ের পর থেকেই নানা বিষয়ে তাদের মধ্যে বনিবনা হয়ে উঠছিলো না। এই কারণে প্রায়ই ২ জনের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ হয়ে আসছিলো। স্ত্রীকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করে আসছিলেন বকুল। বিরোধ মীমাংসা করতে একাধিকবার সালিশ-বৈঠকও হয়। কিন্তু তাতেও কোনো সমাধান মেলেনি। উল্টো বকুল আরও বেপরোয়া হয়ে ওঠেন।

গত ২৮ মার্চ আসমাকে মারপিট করতে থাকেন বকুল। একপর্যায়ে মাথার চুল কেটে ন্যাড়া করে দেন। মেয়েকে নির্যাতনের খবর শুনে বাবা ইসমাইল দেখা করতে এলেও সুযোগ দেননি বকুল। শেষতক সোমবার সন্ধ্যায় স্থানীয়দের সহযোগিতায় মেয়েকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন ইসমাইল।

আসমা খাতুন অভিযোগ করে বলেছেন, ‘একাধিক বিয়ে, মাদকদ্রব্য সেবন করা সহ কারণে-অকারণে অনেকদিন ধরেই স্বামী আমাকে নির্যাতন করে আসছিলো। নির্যাতনের পর মাথা পর্যন্ত ন্যাড়া করে দেয়। বাড়িতেও কাউকে খবর পাঠাতে দেয়নি। এমনকি ন্যাড়া করে দেওয়ার পর ঘরেই আটকে রাখে স্বামী।

ইসমাইল হোসেন বলেন, তিনি তার মেয়ের নির্যাতনকারী স্বামী বকুল হোসেনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

তবে বকুল হোসেন তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘খুশকি হওয়ার কারণে স্ত্রী মাথা ন্যাড়া করেছে। তবে তাদের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ হলেও স্ত্রীকে কখনও নির্যাতন করা হয়নি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: