Home » ইসলাম » মুসলিম উম্যার বিশ্ব ইজতেমা
মুসলিম উম্যার বিশ্ব ইজতেমা
মুসলিম উম্যার বিশ্ব ইজতেমা

মুসলিম উম্যার বিশ্ব ইজতেমা

মাথায় টুপি আর গায়ে পাঞ্জাবি পরিহিত  এসকল ধর্মপ্রাণ মানুষের  তীব্র স্রোতের মোহনা টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরের বিশ্ব ইজতেমা ময়দান। সকলের মুখেই আল্লাহ আল্লাহ ধ্বনি। মূল মঞ্চ থেকে প্রচার হচ্ছিল হেদায়েতের বাণী। এ দৃশ্য দেখা যায় গতকাল শুক্রবার ইজতেমা প্রাঙ্গণে,যেখানে এক বর্গ কিলোমিটার আয়তনের মধ্যে তিল ধারণের ও যেন কোন  ঠাঁই নেই কোথাও।  নিজস্ব মূল শামিয়ানা ছাড়িয়ে আশ পাশের এলাকা গুলোতে শুধু মানুষ আর মানুষ।

কাকরাইল মসজিদের খতিব হাফেজ মাওলানা মোহাম্মদ যোবায়ের ইসলাম এর  ইমামতিতে দেশ-বিদেশের হাজারো লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসলমান আদায় করেন পবিত্র জুমার নামাজ। দুপুর দেড়টার দিকে জুমার খুতবা দেওয়ার জন্য তিনি ইজতেমা ময়দানের মূল মঞ্চের সামনে গিয়ে দাঁড়ান। আর সঙ্গে সঙ্গে স্তব্ধ খোতবা শোনার জন্য পুরো ময়দান। খুতবা শেষে মূল মঞ্চের প্রায় ২০০ গজ পশ্চিম দিকে তুরাগ নদের পাড়ে তার ইমামতিতেই দুপুর প্রায় পোনে দইটার দিকে  শুরু হয় দেশেরবৃহত্তমজুমারনামাযেরজামাত।

গতকাল ফজরের নামাজের পর জর্ডানের প্রখ্যাত আলেম ও তাবলিগ জামাতের মুরব্বি মাওলানা শেখ ওমর খতিব সাহেবের  আমবয়ানের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয় ৫৩তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। উর্দু ভাষার মূল এ বয়ানকে তাৎক্ষণিকভাবে বাংলায় তর্জমা করে শোনান আবদুল মতিন।

জুমায় মুসল্লিদের ঢল : ঘন কুয়াশা আর শীতের দাপটকে উপেক্ষা করে জুমার নামাজে অংশ নিতে তাবলিগ জামাতের লাখ লাখ ‘সাথী’ ছাড়াও সকাল থেকেই গাজীপুর ও টঙ্গীর আশপাশের এলাকার মুসল্লিরা দলে দলে ময়দানের দিকে আসতে থাকেন।  মাঠে স্থান না পেয়ে মুসল্লিরা আশপাশের রাস্তা, গলিতে জুমার নামাজে শরিক হন। শুধু তাই নয়, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয় খুতবা শুরুর আগেই। অগণিত মুসল্লি মহাসড়কে দাঁড়িয়ে জুমার নামাজ আদায় করেন। এ সময় দু’দিকে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।  জুমার নামাজে অংশ নেন বাংলাদেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিবগ।

জুমার নামাজের আগে বয়ান মঞ্চ থেকে বাংলায় তালিম করেন প্রখ্যাত আলেম মাওলানা আবদুল বার এবং জুমার নামাজের পর বয়ান করেন মাওলানা মুহাম্মদ হোসেন। আসরের নামাজের পর পুনরায় বয়ান করেন মাওলানা আবদুল বার সাহেব। মাগরিবের আগ মুহূর্ত পর্যন্ত প্রখ্যাত এই আলেম হেদায়াতের বয়ান করেন। মাগরিবের পর বয়ান করেন মাওলানা রবিউল হক। উর্দু ভাষার মূল বয়ানকে মূল মঞ্চের চারপাশে বিদেশি বিভিন্ন ভাষাভাষী মেহমানদের জন্য বাংলা ছাড়াও ইংরেজি, আরবি, ফার্সিসহ কয়েকটি ভাষায় তখনই  ভাষান্তর করে শোনানো হয়। ঈমান, আমল, আখলাখসহ তাবলীগের ছয় উসুল বা মূলনীতির ওপর তাবলিগের শীর্ষ মুরব্বিদের করা বয়ান প্রতিদিনই  কয়েকটি ভাষায় অনুবাদ করে শোনানো হয়।

এবার এজতেমায় বিশ্বের অন্তত ১১০টি দেশের প্রায় ১২ হাজার ৪ জন বিদেশী  মেহমান গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত এসে পৌছেছেন বলে নিশ্চিত করেছেন দায়িত্বশীলরা। তাদের আগমন অব্যাহত রয়েছে। বিদেশি মেহমানদের জন্য বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থাসহ সুপেয় ঠাণ্ডা ও গরম পানি এবং রান্নার জন্য গ্যাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ভারত, ইন্দোনেশিয়া, নেপাল, ভুটান, সুদান, নাইজেরিয়া, আফ্রিকা, মালয়েশিয়া, ইয়েমেন, ইন্দোশিয়া, সোমালিয়া, ফিলিপাইন, দক্ষিণ আফ্রিকা, মিয়ানমার, লিবিয়া, ইতালি, ইরান, ইরাক, কুয়েত, কাতার, পাকিস্তান, সৌদি আরব,মিসর, কানাডা, পানামাসহ বিশ্বের ১১০টি দেশের মুসলমান বিশ্ব ইজতেমায় যোগ দিয়েছেন বলে বিদেশি মেহমান ক্যাম্প থেকে জানা যায়। ইজতেমা ময়দানের উত্তর পাশে বিদেশি মেহমানদের জন্য পৃথক বিদেশি কার্মা নির্মাণ করা হয়েছে। সেখানে তাদের জন্য প্রয়োজনীয় সুযোগ-সুবিধার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

যানজট : জুমার নামাজের সময় ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়কে মুসল্লিরা নামাজের জামাতে দাঁড়ালে প্রায় আধা ঘণ্টা দু’দিকের সব ধরনের যানবাহন প্রায় এক ঘণ্টা  আটকা পড়ে। বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে মাগুরার শালিখা উপজেলার খালিশপুর গ্রামের আবু কাওসারের ছেলে আজিজুল হক নামে এক মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে তার বুকে ব্যথা অনুভব হলে তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়।  ইজতেমা ময়দানের আশপাশে বিভিন্ন সংগঠন ও কোম্পানির ব্যানারে ফ্রি চিকিৎসা প্রদানের জন্য বহু কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: