Home » খেলাধুলা » ক্রিকেট » মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডকে আইসিসির হুমকি
মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডকে আইসিসির হুমকি
মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডকে আইসিসির হুমকি

মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডকে আইসিসির হুমকি

ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি), মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডের (এমসিজি) কে নিন্মমানের উইকেটের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে সতর্ক করে দিয়েছিল এবং এর ব্যাখ্যাও দিয়েছিল।

মেলবোর্নের পিচ নিয়ে অ্যাশেজ সিরিজের চতুর্থ টেস্ট শেষে  সমালোচনা করেছিলেন খোদ অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ ও  ইংলিশ দলনায়ক জো রুট।  স্মিথ জানিয়েছেন, টেস্টের দৈর্ঘ্য আরও দুদি’ন বেশি হলেও ম্যাচটি ড্র ছাড়া অন্য কোন ফলাফল বয়ে আনতে পারতো না কারণ মেলবোর্ন  টেস্টে বোলারদের যথেষ্ট সংগ্রাম করতে হয়েছে। টেস্টের ৫ দিনে মাত্র ২৪ উইকেটের পতন সেটিই তার উদাহরণ।

আনুষ্ঠানিকভাবে সতর্ক  করার পর অস্ট্রেলিয়া  সেই সিদ্ধান্তের প্রতি কোনো আপত্তি   জানায়নি,  কারণ ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ও মেলবোর্ন ক্রিকেট ক্লাব দুইপক্ষই পিচের মান বৃদ্ধির জন্য আরও কাজ করা হবে বলে প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছেন।

এই প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়ার আন্তর্জাতিক পিচকে নিন্মমানের রেটিং দেয় আইসিসি। এর আগে গত নভেম্বরে নারীদের অ্যাশেজের পর নর্থ সিডনি ওভালের পিচকে ‘সাধারণ মানের চেয়েও খারাপ’ আখ্যা দেয়া হয়।

আইসিসির ম্যাচ রেফারি রঞ্জন মাদুগালে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাছে দেয়া প্রতিবেদনে মেলবোর্নের পিচ নিয়ে ম্যাচ অফিসিয়ালদের শঙ্কার কথাও তুলে ধরেছেন। বক্সিং ডে টেস্টের দুই ইনিংসে ইংল্যান্ড যথাক্রমে ৩২৭ ও ২৬৩ রান করে। অন্যদিকে একমাত্র ইনিংসে অস্ট্রেলিয়া ৪৯১ রান করতেই ম্যাচ ড্র হয়ে যায়।

কোনো ভেন্যুর পিচ ‘সাধারণ মানের চেয়েও খারাপ’ হলে সেটির নামের পাশে এক ডিমেরিট পয়েন্ট যোগ হয়। অন্যদিকে ‘পুওর’ বা নিন্মমানের আখ্যার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ভেন্যুর নামের পাশে তিন ডিমেরিট পয়েন্ট যোগ হয়। আর ‘আনফিট’ পিচের নামের পাশে যোগ হয় ৫ ডিমেরিট পয়েন্ট।

এছাড়া কোনো ভেন্যুর পাশে ৫ ডিমেরিট পয়েন্ট যোগ হলে সেটি ১২ মাস কোনো ধরনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজন করতে পারে না। অন্যদিকে ১০ ডিমেরিট পয়েন্ট যোগ হলে ২৪ মাসের জন্য আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজনে নিষিদ্ধ থাকবে সংশ্লিষ্ট ভেন্যু। পাঁচ বছর মেয়াদ পর্যন্ত ডিমেরিট পয়েন্ট অক্ষুণ্ণ থাকে।

আগামী রোববার মেলবোর্নেই পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হবে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড। সেই ম্যাচের পরই স্পষ্ট হবে পিচের মান বৃদ্ধি পেয়েছে কি-না!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: