Home » জীবনধারা » সুস্থ্য থাকতে মেনে চলুন এই ৫টি অভ্যাস
সুস্থ্য থাকতে মেনে চলুন এই ৫টি অভ্যাস
সুস্থ্য থাকতে মেনে চলুন এই ৫টি অভ্যাস

সুস্থ্য থাকতে মেনে চলুন এই ৫টি অভ্যাস

১. অধিকাংসই চান মাংস বেশি পরিমানে খেতে। পাশাপাশি দুরে রাখেন সবুজ শাকসব্জি। কিন্তু গবেষনায় বলা হয়েছে, মাংস খাবেন কম এবং শাকসব্জি খাবেন বেশি বেশি। তাই সুস্বাস্থ্যের জন্য আমাদের প্রত্যেকের উচিৎ মাংস কম পরিমান গ্রহন করা এবং খাবারের তালিকায় বেশি পরিমানে সবুজ শাকসব্জি রাখা।

২. মিষ্টি জাতীয় খাবার সবারই পছন্দ। তবে এই মিষ্টি জাতীয় খাবার বেশি পরিমানে খেলে হতে পারে নানা সমস্যা। কাজেই খাবারের তালিকা হতে অবশ্যই মিষ্টি জাতীয় খাবার কম রাখা। পাশাপাশি মিষ্টি জাতীয় খাবার এর বিপরীতে বেশি করে ফল মূল খান। সুস্থ্য শরীর গঠনের জন্য ফল এর অবদান অনেক। কাজেই মিষ্টি জাতীয় খাবার খান কম আর বেশি করে ফলমুল খান।

৩. যাতায়াতের জন্য মুখ্যম মাধ্যম গাড়ি। আমরা মোটেও এখন পায়ে হাটতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি না। সেটা সময়ের জন্য হোক বা আধুনিকতার জন্য হোক সবসময় আমরা গাড়ি করেই চলাফেরা করতে আরামবোধ করি। কিন্তু গবেষনায় দেখা গেছে যারা পায়ে হেটে চলাফেরা বেশি করে তাদের শারিরিক অসুখ বিসুখ অতিমাত্রায় কম এবং তাদের শরীর হয় সুঠাম সুস্বাস্থ্যবান। আর যারা গাড়ি করে বেশি চলা ফেরা করে তাদের মধ্যে বেশির ভাগই অল্প বয়সেই নানান রোগব্যাধিতে ভোগেন। সুতরাং সুস্বাস্থ্য লাভের জন্য গাড়ি করে চলাফেরা কম করুন আর বেশি বেশি করে হাটার অভ্যাস করুন।

৪. সবারই নিয়ম মাফিক ঘুমের প্রয়োজন। সুস্বাস্থ্য ও শরীরের অঙ্গপ্রত্যঙ্গ সঠিক ভাবে কার্যক্ষমতা লাভের জন্য ঘুম অতিপ্রয়োজনীয়। তবে অবশ্যই মনে রাখতে হবে যে, সময় মত ঘুমের দরকার। এর জন্য সকল প্রকার দুঃশচিন্তা, বদ অভ্যাস বা গভীর চিন্তাচেনাকে বিদায় দিতে হবে। ভালো চিন্তা ভাবনা আর মনকে শীথির রেখে সবসময় নিয়মমাফিক ঘুমাবেন।

৫. ব্যস্ত জীবনে সবারই মন সংযোজন এক থাকে না। কাজের চাপ বা মানসিক চাপের কারনে প্রায়ই আমরা রেগে বা চরা মেজাজে থাকি। সবার সাথে চড়া ব্যবহার করে থাকি। আর এমনটা বরাবরই শরীরের উপর ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে থাকে। তাই অতিরিক্ত রাগ না খাটিয়ে চেষ্টা করুন সব সময় ঠান্ডা মাথায় কাজ করতে এবং সব সময় মুখে অন্তর খুলে হাসির অভ্যাসটি করুন। হাসি আপনার মন ও শরীরকে সুস্থ্য রাখতে সবথেকে বেশি সহায়তা করে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: