কবিতা

দু’টাকার গোলাপ

দু’টাকার গোলাপ

প্রতি নিয়ত শিখছি.. বেঁচে থাকার কায়দা.. কখনো জানলাতে চোখ রেখে.. কখনো বা মেঘটা কে দেখে.. তোমার রূপকে আড়াল করার ক্ষমতা আমার নেই… কিছুক্ষণের জন্যও তুমি শুধু আমার… তোমার কথার চার দেওয়ালে বন্দী.. ফোনের প্রেমালাপ চলত.. মাঝরাতে তোমার টানে আমি মিথ্যুক সেজেছি… সব কথা বলা হয়নি… ওগুলো না বলাই থাক… পাপড়ি গুলো শুকিয়ে গেছে.. মূল্য হারিয়েছে দু টাকার গোলাপ ।

Read More »

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি – আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ

আমি কিংবদন্তির কথা বলছি – আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ

আমি আমার পূর্বপুরুষের কথা বলছি। তাঁর করতলে পলিমাটির সৌরভ ছিল তাঁর পিঠে রক্তজবার মত ক্ষত ছিল। তিনি অতিক্রান্ত পাহাড়ের কথা বলতেন অরণ্য এবং শ্বাপদের কথা বলতেন পতিত জমি আবাদের কথা বলতেন তিনি কবি এবং কবিতার কথা বলতেন। জিহ্বায় উচ্চারিত প্রতিটি সত্য শব্দ কবিতা, কর্ষিত জমির প্রতিটি শস্যদানা কবিতা। যে কবিতা শুনতে জানে না সে ঝড়ের আর্তনাদ শুনবে। যে কবিতা শুনতে ...

Read More »

প্রিয়তমা

প্রিয়তমা

আমি আছি ততোদিন তুমি রবে যতদিন স্বপ্ন যাবে তত দূর তুমি নিবে যতদূর। প্রিয়তমা ও প্রিয়তমা আমায় ছেড়ে যেও না বৃথা কষ্ট দিও না স্বপ্নটা ভাঙিও না। আমি যখন ঘুমিয়ে থাকি স্বপ্নে শুধু তোমায় দেখি আমি যখন জেগে থাকি কল্পনাতে তোমায় খুজি। দূরে তাই যেও না দূরত্ব বাড়িয়ে আমাকে ছাড়িয়ে আমারই জীবন থেকে স্বপ্নগুলো রেখে। স্বপ্নগুলো স্বপ্নই রবে নাকি আমার ...

Read More »

ভালোবাসার পদ্মফুল

ভালোবাসার পদ্মফুল

সাদা কাগজে দিলাম চিরকুট তোমায় ইচ্ছে হলে ফেলে দিও, না হয় সযত্নে তুলে রেখো আমার রঙিন শার্টের কলার হয়ে গলা জড়িয়ে থেকো। পদ্মফুল পানিতে খায় পানিতে ঘুমায় পাপড়ি মেলে সৌরভ বিলায় টুপ করে খসে পড়ে পানিতে- চিরকাল গাছে থাকে না পদ্মফুল পানিতে ফোটে কিন্তু; গায়ে কখনো পানি রাখে না। তুমি আমার খেয়ে, আমার পরে বেঁচে থেকো পাপড়ি মেলে সৌরভ বিলিয়ো ...

Read More »

গন্ধবিভোর রাত

গন্ধবিভোর রাত

হে চির যৌবনা প্রাণবন্ত বসন্ত আমার তোমার আগমনে আমাকে আবেগে আপ্লুত হতে দাও। তোমার স্তুতিগান গাইতে আমাকে আরও প্রলুব্ধ করো তোমার আগমনী ধ্বনি শতধারায় বেজে উঠুক আজ। আমাকে আজ শুতে দাও তোমার বুকে গজিয়ে উঠা কচিকাঁচা সবুজ ধানের বিস্তীর্ণ মাঠের উপর। আমার অবসন্ন ক্লান্ত শ্রান্ত শরীরে আজ মেখে দাও; মখমলে দখিনা বাতাসের প্রাণবন্ত ফুরফুরে হাওয়া। আমার উন্মতাল নাসারন্ধ্র পথে গুঁজে ...

Read More »

 কবর -জসীম উদ্দীন

কবর -জসীম উদ্দীন

এই খানে তোর দাদির কবর ডালিম-গাছের তলে, তিরিশ বছর ভিজায়ে রেখেছি দুই নয়নের জলে। এতটুকু তারে ঘরে এনেছিনু সোনার মতন মুখ, পুতুলের বিয়ে ভেঙে গেল বলে কেঁদে ভাসাইত বুক। এখানে ওখানে ঘুরিয়া ফিরিতে ভেবে হইতাম সারা, সারা বাড়ি ভরি এত সোনা মোর ছড়াইয়া দিল কারা! সোনালি ঊষার সোনামুখ তার আমার নয়নে ভরি লাঙল লইয়া খেতে ছুটিলাম গাঁয়ের ও-পথ ধরি। যাইবার ...

Read More »

আসমানী-জসিম উদ্দিন

আসমানী-জসিম উদ্দিন

আসমানীরে দেখতে যদি তোমরা সবে চাও, রহিমদ্দির ছোট্ট বাড়ি রসুলপুরে যাও। বাড়ি তো নয় পাখির বাসা ভেন্না পাতার ছানি, একটুখানি বৃষ্টি হলেই গড়িয়ে পড়ে পানি। একটুখানি হাওয়া দিলেই ঘর নড়বড় করে, তারি তলে আসমানীরা থাকে বছর ভরে। পেটটি ভরে পায় না খেতে, বুকের ক-খান হাড়, সাক্ষী দিছে অনাহারে কদিন গেছে তার। মিষ্টি তাহার মুখটি হতে হাসির প্রদীপ-রাশি থাপড়েতে নিবিয়ে দেছে ...

Read More »