Home » বাংলাদেশ » অপরাধ » ঢাবি’র আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীর পায়ের রগ কেটে দেওয়া হয়েছে

ঢাবি’র আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীর পায়ের রগ কেটে দেওয়া হয়েছে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর পায়ের রগ কেটে দেওয়া হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতে ওই হলের ছাত্রলীগের সভাপতি ইফফাত জাহান এশা ওই ছাত্রীকে নির্যাতনের পর তার পায়ের রগ কেটে দিয়েছে বলে অভিযোগ করেছে হলের ছাত্রীরা।

ছাত্রীদের দাবি, হলের এশা রাতে বোটানি বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্রী মোর্শেদা আক্তারকে নিজের রুমে নিয়ে গিয়ে তাকে প্রচুর মারধর করে এবং এক পর্যায়ে তার পায়ের রগ কেটে দেয়। এসময় বাইরে থেকে ঈশার দরজায় অনেক ধাক্কাধাক্কি করার পরও সে দরজা খোলেনি। কিছুক্ষণ পরে দরজা ভেঙে রমে ঢুকে শিক্ষার্থীরা দেখতে পায় ঘরের ফ্লোর রক্তাক্ত হয়ে আছে এবয় পাশেই আহত অবস্থায় মোর্শেদা পরে আছে। এ ঘটনায় ওই হলের ছাত্রীরা আরও জানায়, আন্দোলনের শুরু থেকেই নিজের রুমে নিয়ে গিয়ে ছাত্রীদের মারধর করে ওই সভাপতি। কিন্তু ভয়ে এতদিন কেউ মুখ খোলেনি।

খবর পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর এ কে এম গোলাম রব্বানি ঘটনাস্থলে পৌঁছে সাংবাদিকদের জানান, সব আবাসিক শিক্ষকেরা ছাত্রীদের শান্ত করার চেষ্টা করছেন। কিন্তু ছাত্রীরা কেউ কথা শুনছে না। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো. আখতারুজ্জামান ইফফাত জাহানকে বহিষ্কারের কথা নিশ্চিত করেন। কিন্তু এতেও ছাত্রীদের আন্দোলন থেমে নেই।

এদিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ সভাপতি আবিদ আল হাসান এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে বলেন, কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারী কাউকে বকা দেওয়া হয় নি। ওই ছাত্রী নিজেই কাচে লাথি মেরে পা কেটে ফেলেন। এটাকে ইস্যু করে অনেকে গুজব ছড়িয়ে ফায়দা নেওয়ার চেষ্টা করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

%d bloggers like this: