Home » স্বাস্থ্য » শরীরের গন্ধই বলে দেবে আপনি সুস্থ কি না
শরীরের গন্ধই বলে দেবে আপনি সুস্থ কি না
শরীরের গন্ধই বলে দেবে আপনি সুস্থ কি না

শরীরের গন্ধই বলে দেবে আপনি সুস্থ কি না

প্রতিটি ব্যক্তির দেহেই রয়েছে আলাদা আলাদা সুগন্ধ। তবে এটা বিভিন্ন সময়ে পরিবর্তিত হতে পারে। দেহের গন্ধের উপরেই অনেক সময় আমাদের সুস্থতা নির্ভর করে। চলুন জেনে নেওয়া যাক শরীরের দুর্গন্ধের উপর নির্ভর করে কিভাবে রোগ নির্ণয় করা যায়।

১) ফলের গন্ধঃ শরীরে ইনসুলিনের পরিমাণ কমে গেলে ডায়াবেটিকস রোগের উপসর্গ দেখা দেয়। এসময় শরীর শক্তি উৎপন্ন করতে পারে না। ফলে দেহের সব সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য এটি দেহের ফ্যাটি অ্যাসিডকে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করে। যা শরীরে কেটোনস নামে অ্যাসিডিক রাসায়নিক তৈরি করে। অ্যাসিটোন নামের এই অ্যাসিড শ্বাসের মধ্যে একটি ফলের গন্ধ ছেড়ে দেয়।

২) দুর্গন্ধযুক্ত পাঃ যদি দেখেন পায়ের পাতার চারপাশের চামড়া শুকিয়ে খসখসে হয়ে গেছে বা চামড়া লাল হয়ে ফোসকা পড়েছে। তাহলে বুঝতে হবে আপনার পা ক্রীড়াবিদদের পায়ের মতো। এই ধরনের পা ঘামলে সেখানে ব্যাকটেরিয়া এবং ছত্রাকের সংমিশ্রণে দুর্গন্ধ বের হয়।

৩) গন্ধযুক্ত শ্বাসঃ দুগ্ধজাত দ্রব্যগুলোতে ল্যাকটোজ পাওয়া যায়। অন্ত্রে যথেষ্ট পরিমাণে ল্যাক্টোজ নামের এনজাইম উৎপন্ন করে। ফলে এটি তখন ল্যাক্টোজ হজম করতে পারে না। এতে আপনার ছোট্ট অন্ত্র সরাসরি রক্তচাপের পরিবর্তে কোলনকে ল্যাক্টোজ নির্দেশ করে, যেখানে অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়াটি খিঁচুনির সৃষ্টি করে। এর ফলে দুর্গন্ধযুক্ত মল, বমিতে দুর্গন্ধ এবং গন্ধযুক্ত গ্যাসের সৃষ্টি হতে পারে।

৪) প্রস্রাবে গন্ধঃ মূত্রনালীর সংক্রমণের ফলে প্রস্রাবে তীব্র গন্ধ হতে পারে। মূত্রনালীতে ব্যাকটেরিয়া ই. কোলি প্রবেশ করলে এই সমস্যার সৃষ্টি হয়। নারীরা এই ধরনের সমস্যায় বেশি ভোগেন কারণ এদের মূত্রনালী আকারে ছোট হয়।

৫) মুখের দুর্গন্ধঃ ঘুমের মধ্যে নাক ডাকা খুবই খারাপ একটা ঘটনা। ঘুমের মধ্যে শ্বাস বন্ধ হয়ে যাওয়ার ফলেই এমনটা হয়ে থাকে। অতিরিক্ত নাক ডাকার সময় মুখ দিয়ে শ্বাস বের হওয়ার সময় মুখের ভেতর শুকিয়ে যায়। এর ফলে দুর্গন্ধযুক্ত শ্বাস বের হয় এবং মুখে দুর্গন্ধ সৃষ্টি হয়।

৬) যোনির দুর্গন্ধঃ প্রত্যেক নারীরই যোনির আলাদা আলাদা গন্ধ রয়েছে। তবে এই গন্ধ বিভিন্ন সময়ে পরিবর্তিত হতে পারে। ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণের ফলে যোনি থেকে খারাপ গন্ধ বের হতে পারে। এ কারনে এই সমস্যা দেখা দিলে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

One comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

%d bloggers like this: